দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২১ Ι Dakhil Routine 2021

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২১ Ι Dakhil Routine 2021

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২১ বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড। দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২১ ডাউনলোড এবং দাখিলের ফলাফল ২০২১। দাখিল রুটিন ২০২১ PDF ডাউনলোড করুন www.bmeb.gov.bd বাংলাদেশ মাদ্রাসা বোর্ডের ওয়েবসাইটে। বাংলাদেশ মাদ্রাসা বোর্ডের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ঠিকানার মাধ্যমে তাদের নোটিশ বোর্ডে সমস্ত বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করবে।

বাংলাদেশ দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২১ একই তারিখ এবং সময় প্রকাশিত হবে যখন এসএসসি রুটিন ২০২১ প্রকাশিত হবে। অনেক সময় এসএসসি রুটিন এর একদিন আগে এবং পরে প্রকাশ করে থাকে। কিন্তু, উভয় পরীক্ষা একই তারিখ এবং সময়ে শুরু হবে।

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২১ Ι Dakhil Routine 2021

গত বছর মোট ২৮৬৯১৭ (১৪২৬২২ পুরুষ এবং ১৪৪২৯৫ মহিলা) পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। এর মধ্যে ২০৩৩৮২ (১০১৪৩৬ পুরুষ এবং ১০১৯৪৬ মহিলা) পরীক্ষার্থী পাস করেছে। মোট পাসের হার 70.89 শতাংশ। মোট ৩৩৭১ (১৯৮৮ পুরুষ এবং ১৩৮৩ মহিলা) পরীক্ষার্থী  জিপিএ ৫.০০ পেয়েছে। ২০২১ সালে এই ফলাফল আরো ভালো হবে বলে আশা করা যায়।

বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড দাখিল ও আলিম পরীক্ষা পরিচালনা করে থাকেন। দাখিল পরীক্ষার সময়সূচী ২০২১ তারাই প্রকাশ করবে। রুটিন আপডেট হলে আমাদের ওয়েবসাইটে আপডেট করব।

১৯ জানুয়ারি, ২০২০ প্রকাশিত

দাখিল পরীক্ষা ২০২১ কোন কোন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করতে পারবে

ক. নিয়মিত, অনিয়মিত. জিপিএ উন্নয়ন ও আংশিক (এক থেকে চার বিষয়ে অকৃতকার্য যার জন্য যা প্রযোজ্য)। সকল শিক্ষার্থীকে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক প্রণীত শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যসূচি(সিলেবাস)। যা করোনা পরিস্থিতির কারণে দাখিল-২০২১ পরীক্ষার জন্য NCTB কর্তৃক পুনর্বিন্যাস করা হবয়েছে ঐ অনুসারে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

খ. ২০১৭-১৮ ও ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে রেজিস্ট্রেশনধারী যে সকল শিক্ষার্থী ২০১৯ ও ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছে অথবা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেনি, তারাই ২০২১ সালে দাখিল পরীক্ষায় অনিয়মিত পরীক্ষার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করতে পারবে।

গ. রেজিস্ট্রশনের মেয়াদ থাকলে ২০১৯ ও ২০২০ দাখিল পরীক্ষায় অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৪র্থ বিষয় বাদে (এক থেকে চার বিষয়ে)। অকৃতকার্য পরীক্ষার্থীরা অকৃতকার্য বিষয়/বিষয়সমূহে ২০২১ সালের দাখিল পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। ঐ পরীক্ষার্থীগণ ৪র্থ বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না। অংশগ্রহণকৃত বিষয়/বিষয়সূহের প্রাপ্ত GP উত্তীর্ণ বিষয়/বিষয়সূহের সংরক্ষিত GP একসঙ্গে যোগ করে পরীক্ষার্থীর GPA নির্ণয় করা হবে। তবে তারা ইচ্ছা করলে সকল বিষয় পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

ঘ. ২০২০ সালের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে সকল বিষয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। কিন্তু জিপিএ ৫.০০ এর কম। ইচ্ছা করলে রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ থাকলে  জিপিএ উন্নয়নের জন্য তারা ২০২১ সালের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। কিন্তু তাদের সকল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। কোন অবস্থাতেই উল্লেখিত বিষয় ও মাদ্রাসা পরিবর্তন করা যাবে না। এক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীকে অনলাইনে ফরমপূরণ করতে হবে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের যথাস্থানে রেজিস্ট্রশন নম্বর, রোল নম্বর ও প্রাপ্ত জিপিএ উল্লেখ করতে হবে। অনলাইনে ফরম পূরণের পর প্রিন্ট করে ক্রমিকের স্থলে জিপিএ শব্দটি লিখতে হবে।

পরীক্ষার পূরণকৃত ফরমের সাথে ২০২০ সালের পরীক্ষার প্রবেশপত্র। একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট এর সত্যায়িত ফটোকপি অবশ্যই সংযোজন করে। চূড়ান্ত তালিকার সাথে আলাদাভাবে জমা দিতে হবে। পরীক্ষার্থী জিপিএ উন্নয়ন হলে তা গ্রহণ করা হবে। অন্যথায় পূর্বের জিপিএ বহাল থাকবে।

ঙ. কোন অবস্থাতেই এক মাদ্রাসার শিক্ষার্থী অন্য মাদ্রাসার নামে পরীক্ষা দিতে পারবে না। অন্য মাদ্রাসা থেকে পরীক্ষা দিতে চাইলে বোর্ডের ছাড়পত্র লাগবে। সেক্ষেত্রে পরীক্ষার্থী ছাড়পত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি চূড়ান্ত তালিকার সাথে জমা দিতে হবে।

দাখিল পরীক্ষার সিলেবাস ২০২১ কি কি বিষয়ে হবে

১. সাধারণ বিভাগের বিষয়সমূহ ও বিষয় কোডঃ

কুরআন মাজিদ ও তাজবিদ (১০১), হাদিস শরিফ (১০২), ইসলামের ইতিহাস (১০৯)।

২. বিজ্ঞান বিভাগের বিষয়সমূহ ও বিষয় কোডঃ

হাদিস শরিফ (১০২), পদার্থবিজ্ঞান (১৩০), রসায়ন (১৩১)।

৩. মুহাব্বিদ বিভাগের বিষয়সমূহ ও বিষয় কোডঃ

কুরআন মাজিদ ও তাজভিদ (১০১), হাদিস শরিফ (১০২), তাজভিদ নসর ও নজম (১১৯)।

৪. হিফজুল কুরআন বিভাগের বিষয়সমূহ ও বিষয় কোডঃ

কুরআন মাজিদ ও তাজভিদ (১০১), হাদিস শরিফ (১০২), তাজভিদ (১২১)।

দাখিল পরীক্ষার সংক্ষিপ্ত সিলেবাস ২০২১। উপরোক্ত বিভাগের বিষয়ে মধ্য থেকেই সিলেবাস নির্ণয় করা হয়। পরীক্ষার জন্য ১৫ সপ্তাহে মোট ৩০টি অস্যাইনম্যান্ট। এই অ্যাসাইনম্যান্টের মাধ্যমে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস শেষ করা হবে। তারপর নভেম্বের ২য় সপ্তাহে পরীক্ষার হওয়ার সম্ভাবনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

দাখিল পরীক্ষার ফলাফল ২০২১ প্রকাশ পদ্ধতি

সকল প্রকার পরীক্ষার্থীর ফলাফল নিম্নেবর্ণিত গ্রেডিং পদ্ধতিতে প্রকাশ করা হবে।

লেটার গ্রেডপ্রাপ্ত নম্বরের শ্রেণিব্যাপ্তিগ্রেড পয়েন্ট
A+80 – 1005.00
A70 – 794.00
A-60 – 693.50
B50 – 593.00
C40 – 492.00
D33 – 391.00
F00 – 320.00

দাখিল পরীক্ষার নম্বর বন্টন পদ্ধতি ২০২১। পরীক্ষার ফলাফল, সংক্ষিপ্ত সিলেবাস, রুটিন সম্পর্কিত সকল তথ্য  জানতে আমাদের ওয়েবসাইট এডুক্যারিয়ারবিডি এর সাথে থাকুন।

Updated: August 9, 2021 — 8:58 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *